চট্টগ্রাম, শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

কাজ করো, ফল তোমাদের পিছনে দৌঁড়াবে: উপাচার্য

পরিসর.কম

প্রকাশিত : ০৪:১১ এএম, ২৯ মে ২০১৭ সোমবার | আপডেট: ১২:৩৭ পিএম, ২৯ মে ২০১৭ সোমবার

কাজ করো, ফল তোমাদের পিছনে দৌঁড়াবে: উপাচার্য

কাজ করো, ফল তোমাদের পিছনে দৌঁড়াবে: উপাচার্য

দিনভর নাচ, গান, আবৃত্তি ও আলোচনার মধ্য দিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ইতিহাসে প্রথমবারের মত সমাজবিজ্ঞান অনুষদে অনুষ্ঠিত  নবীন বরণ অনুষ্ঠান। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে স্বপ্নবান মানুষ তৈরির জায়গা। বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে বিশ্বনাগরিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলার উর্বর ক্ষেত্র। তাই এখানে এসে শুরুতেই যদি জীবনের লক্ষ্য ঠিক করা যায়, তবে লক্ষ্যচ্যুত হওয়ার কোনো ভয় থাকে না। আমি বলবো, তোমরা কাজ করো, ফল অটোমেটিক তোমাদের পিছনে দৌঁড়াবে।

অনুষদের সকল বিভাগের সমন্বয়ে ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ সম্মান শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের ওরিয়েনটেইশন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

CU_Culture

আজ সকাল ১০টায় অনুষদ মিলনায়তনে ওই অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়। এতে ওরিয়েনটেইশন বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউজিসি প্রফেসর ড. মইনুল ইসলাম। সভাপতিত্ব করেন সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. ফরিদ উদ্দিন আহামেদ।
বিশেষ আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখবেন চবি ছাত্র-ছাত্রী পরামর্শ ও নির্দেশনা কেন্দ্রের পরিচালক  প্রফেসর ড. এ. এফ. ইমাম আলি, প্রীতিলতা হলের প্রভোস্ট প্রফেসর ড. শান্তি রাণী হালদার, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ড. মুস্তাফিজুর রহমান ছিদ্দিকী এবং প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী। তাঁরা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন নিয়ম-শৃঙ্খলা এবং পরামর্শ ও উদ্দীপনামূলক বক্তৃতা করেন।

অনুষদের অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ মামুন মোরশেদ ভূঁইয়া, সমাজতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আসমা আক্তার আঁখি ও নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নাসরিন আক্তারের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে অর্থনীতি, রাজনীতি বিজ্ঞান, সমাজতত্ত্ব, লোকপ্রশাসন, নৃবিজ্ঞান, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক এবং যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সভাপতিবৃন্দ শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখবেন।

CU_Culture

সমাপনি বক্তৃতায় অনুষদের ডিন ড. ফরিদ উদ্দিন আহামেদ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সংস্কৃতি চর্চার আধার। পড়াশোনার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ বাঙালি চেতনাকে আরও শাণিত করবে- এ আমার বিশ্বাস। আমি মনেকরি, এ ধরনের অনুষ্ঠান শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনকে আনন্দময় ও অনুপ্রাণিত করবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মত অনুষদের সকল বিভাগের অংশগ্রহণে ওই আয়োজনমালাকে স্বাগত জানিয়ে অর্থনীতি এবং যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী যথাক্রমে মো: তামিম ও নাজমুস সোয়ালেহীন বলেন, এ ধরনের আয়োজন বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাগত শিক্ষার্থীদেরকে ব্যাপকভাবে অনুপ্রাণিত করবে। আমরা চাই, প্রতিবছরই এ ধরনের আয়োজন করা হোক।

CU_Culturer Program

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে বেলা তিনটা থেকে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এতে অনুষদের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।